এরপর যা হবে তার দায়-দায়িত্ব সরকারের: ড. কামাল

গণভবনে সংলাপ শেষ করে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা রাজধানীর বেইলি রোডে ড. কামাল হোসেনের বাসায় রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসেছেন। বুধবার বিকেল পৌনে ৩টায় এ বৈঠক শুরু হয়।

ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ‘সংলাপের মাধ্যমে আমরা দাবি-দাওয়া উত্থাপন করেছি। শান্তিপূর্ণ উপায়ে দাবি আদায় করতে চেয়েছি আমরা। এখন বল প্রধানমন্ত্রীর কোর্টে। এরপর যা হবে তার দায়-দায়িত্ব সরকারের।‘

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সংলাপের পর এ সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়।

বৈঠকে ড. কামাল হোসেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আ স ম আবদুর রব, মাহমুদুর রহমান মান্না, মোস্তফা মহসীন মন্টু প্রমুখ উপস্থিত আছেন।

এ দিকে সংলাপ শেষে গণভবন থেকে বেড়িয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী অবায়দুর কাদের জানিয়েছেন, তারা আজকে যে দাবিগুলো নিয়ে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী তার বেশির ভাগ দাবিই মেনে নিয়েছেন। তারা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে, সে বিষয়ে তার ঐক্যমত চান।

তিনি বলেন, তারা চেয়েছেন সংসদ ভেঙে দিয়ে ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন। এছাড়া তারা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড ও রাজবন্দিদের মুক্তি চেয়েছেন, এ বিষয়ে তাদের দাবি মেনে নিতে আমাদের কোনো সমস্যা নেই।

নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন সম্পর্কে তিনি বলেন, সেনাবাহিনীর মেজিস্ট্রেসি পাওয়ার নিয়ে তারা যা বলেছেন, তা আমাদের দেশে চালু নেই। তবে নির্বাচনে সেনাবাহিনী টাস্কফোর্স ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে নিয়োজিত থাকবে।