বিপিএলে ৩৬ বলে ১০৩ রানের তাণ্ডব

খেলা চলছে। অথচ চার-ছক্কার নাম গন্ধ নেই। একেবারে মন্থর গতিতে যাত্রা শুরু হয়েছিল ষষ্ঠ বিপিএলের। তবে ঢাকা ডায়নামাইটসের হযরতউল্লাহ জাজাই সেই দৃশ্যপট কিছুটা হলেও পরিবর্তন এনে দেন। তার মারকাটারি ব্যাটিংয়ের কল্যাণে ‘স্লো উইকেট’ কিছুক্ষণের জন্য ব্যাটসম্যানদের পক্ষে সাফাই গায়। মুহুর্তেই দর্শকরা তৃপ্ত হন। আনন্দে মাতোয়ারা হয় মিরপুরের ক্রিকেট কানন।

আফগান বালকের সেদিনকার তাণ্ডবে কপাল পুড়ে রাজশাহী কিংসের বোলার আলাউদ্দিন বাবুর। মূলত তাকে নিয়েই ছিনিমিনি খেলেন ঢাকার ব্যাটসম্যানরা। সেই ম্যাচটিতে মাত্র তিন ওভার বোলিং করে ৫৩ রান খরচ করেন বাবু। যা চলতি বিপিএলের সবচেয়ে খরুচে বোলিং। মজার ব্যাপার হলো, এই আলাউদ্দিন বাবুই কিন্তু ঘরোয়া ক্রিকেটে ১ ওভারে ৩৮ রান খরচ করে আলোচনায় এসেছিলেন।

রাজশাহী কিংসের আলাউদ্দিন বাবুর লজ্জার উপখ্যানের পর আজ আরেকটি ঘটনা দৃশ্যত হয়েছে খুলনা-ঢাকার ম্যাচে। মঙ্গলবারের ম্যাচে কপাল পুড়েছে খুলনার পেসার শরিফুল ইসলামের। আর নাটের গুরু সেই জাজাই-নারিন-রাসেল।

খুলনার বিপক্ষে ১০৫ রানে জয়ের ম্যাচটিতে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে প্রথম দুই ওভারে ৪৩ রান খরচ করেন শরিফুল ইসলাম। এর পরের ওভারে সাত রান খরচ করেন তিনি। অর্থাৎ ৩ ওভার বোলিং করে ৫০ রান খরচ করেন খুলনার এই পেসার। যার কারণে বড় ধরনের লজ্জায় পড়তে হয় খুলনাকে। দুই ম্যাচে দুই বোলারের ৩৬ বলে ১০৩ রান সংগ্রহ করে ব্যাটসম্যানরা।