ডাস্টবিন থেকে ব্যারিস্টার সুমনের লাইভে বেঁচে গেল ১৫০০ শিশু

রাজধানীর সুরিটোলা বিদ্যালয়ের সামনে থাকা ডাস্টবিনের ভেতরে ঢুকে গিয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমনের ফেসবুক লাইভের মাত্র ৬ ঘণ্টার মধ্যে সরিয়ে নেয়া হয়েছে ময়লার ডাস্টবিনটি।

এরপর আজ দুপুর আড়াইটার দিকে আরেকটি লাইভে এসে সুমন জানান- মাত্র ৬ ঘণ্টায় সরে গেল ময়লার ডাস্টবিন । বেঁচে গেল ১৫০০ শিশু। গতকাল রবিবার বিকেলের দিকে ফেসবুকে লাইভে এসে সুমন ডাস্টবিনটি সরিয়ে নেয়ার আহ্বান জানান। ভিডিওটির ক্যাপশনে লেখা ছিল স্কুলের বাচ্চাদের বাঁচান, বেঁচে যাবে ভবিষ্যৎ।

সেখানে দাঁড়িয়ে তিনি ফেসবুক লাইভে আসেন। এ সময় তিনি বিদ্যালয়টির সামনে থেকে ডাস্টবিনটি সরিয়ে শিক্ষার্থীকে দুর্গন্ধের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানান। ফেসবুক লাইভে সুপ্রিমকোর্টের এ আইনজীবী বলেন, আমি একটি ময়লা ডাস্টবিনের ওপর দাঁড়িয়ে আছি। এটি একটি ডাস্টবিন। ডাস্টবিন থাকতেই পারে। কিন্তু এটি একটি বিদ্যালয়ের সামনে, বিদ্যালয়ের মূল প্রবেশদ্বারের সামনে এ ডাস্টবিন।

তিনি বলেন, বিদ্যালয়টিতে ১৫০০ শিক্ষার্থী পড়ালেখা করছে। সেই বিদ্যালয়ের ফটকেই এ ডাস্টবিন। জজকোর্ট থেকে হাইকোর্ট যাওয়ার পথে, গুলিস্তানে, সৈয়দ নজরুল ইসলাম সরণির সামনে আপনারা এই ডাস্টবিনটি পাবেন। ‘আমার কষ্ট লাগে যে কারোই এটি চোখে পড়ে না। ১৫০০ বাচ্চা যে জায়গায় থাকে, সে বাচ্চার চোখের সামনে আপনি সারাক্ষণ, দুর্গন্ধের ডাস্টবিন রেখে দিয়েছেন।’

আইনজীবী সুমন আরও বলেন, এদের এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দেন। কোনো বিদ্যালয়ের সামনে দুর্গন্ধের ডাস্টবিন থাকতে পারে না। আল্লাহর ওয়াস্তে এদের দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি দেন। এদের যদি দুর্গন্ধ থেকে মুক্তি দেন আমার বিশ্বাস তখনই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা হবে।