আমি জানতাম, আমার স্বামী আগে বিয়ে করেছিল: সালমা

আমি জানতাম, আমার স্বামী আগে বিয়ে করেছিল: সালমাক্লোজআপ ওয়ানখ্যাত সংগীতশিল্পী মৌসুমী আক্তার সালমা ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের ছেলে সানাউল্লাহ নূর সাগরকে বিয়ে করেছেন গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর। এই খবর গণমাধ্যমে সালমা নিজেই জানান জানুয়ারিতে। এসব পুরোনো খবর। নতুন খবর হলো, সালমার স্বামীর এর আগেও বিয়ে হয়েছিল। সেই স্ত্রী সানাউল্লাহ নূরের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ১-এ মামলা করেছেন। খবরটি বেশকিছু গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে এনটিভি অনলাইনের পক্ষ থেকেও সালমার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।

এ বিষয়ে সালমা সোজাসাপ্টা বলেন, ‘আমি জানতাম, আমার স্বামী আগে বিয়ে করেছিল। সাগর তার প্রথম স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার পরই আমি তাকে বিয়ে করি। বিয়ে নিয়ে যদি কোনো সমস্যা থাকত তবে আমি বিষয়টি সংবাদমাধ্যমের কাছে জানাতাম না। আর বিয়ের খবর প্রকাশের তিন মাস পর তার আগের স্ত্রীর মামলা নিয়ে নিউজ হচ্ছে। এই তিন মাস তারা কোথায় ছিল? সাথে সাথে কেন মামলা নিয়ে কথা বলেনি? গতকাল আমার একটি গান প্রকাশ করা হয়েছে। আর আজ এমন খবর প্রকাশ করা হলো। আমি মনে করি, আমার ও আমার পরিবারের বিরুদ্ধে কেউ ষড়যন্ত্র করছে।’

প্রথম স্ত্রীকে না জানিয়েই কি সাগর আপনাকে বিয়ে করেন? এমন প্রশ্নের জবাবে সালমা বলেন, ‘আমি এতটা বোকা মেয়ে নই যে একজনের স্ত্রী থাকার পরও তাকে আমি বিয়ে করব। তার প্রথম স্ত্রীর সাথে বিবাহ বিচ্ছেদের পর আমরা বিয়ে করেছি। আমার কাছে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের কাগজ রয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি আমি বিষয়গুলো প্রকাশ্যে নিয়ে আসব।’

সালমা আরো বলেন, ‘আমি একটি গণমাধ্যমে পড়েছি গত ৭ অক্টোবর সাগর নাকি লন্ডন যায়। বিষয়টি মিথ্যা। সাগর লন্ডন যায় ৬ সেপ্টেম্বর। কেউ প্রমাণ দেখাতে পারবে না যে সাগর ৭ অক্টোবর লন্ডন গেছে। আরেকটি বিষয় হাস্যকর লেগেছে, তা হলো লন্ডনে যাওয়ার আগে নাকি সাগরের পরিবার আর তার আগের শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা তাকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হাসি মুখে বিদায় জানিয়েছে।

আর ১৯ নভেম্বর কক্সবাজারে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল ১-এ মামলা করেন তার সাবেক স্ত্রী। আরে যদি ৭ অক্টোবর লন্ডন যায়, যাওয়ার আগে তার স্ত্রীকে যদি মেরেই থাকে, তবে তো তাকে হাসিমুখে বিদায় দেওয়ার কথা নয়। আর যদি সাগর মেরেই থাকে তবে মামলা তো সাথে সাথেই করার কথা। দেড় মাস পর কেন?’

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সাগর ও তার মা-বাবাকে খুঁজছে। এমন খবরে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন সালমা। তিনি বলেন, ‘আমার শ্বশুর-শাশুড়ি আমার সাথেই রয়েছেন। আমরা এক সাথে সুখে দিন কাটাচ্ছি। কেউ আমার শ্বশুর-শাশুড়িকে খুঁজছে না। আর সাগর তো সরকারের অনুমতি নিয়েই লন্ডনে পড়াশুনা করছে। সে পলাতক হবে কেন?’

সালমা আরো বলেন, ‘আসলে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য কেউ ইচ্ছে করে এমন খবর প্রকাশ করছে। আমি বিষয়গুলোর জন্য আইনের আশ্রয় নেব। মানহানির মামলা করব। সাগরের সাবেক স্ত্রীর পক্ষ থেকে যা বলা হয়েছে তার কোনোটাই ঠিক নেই। নিজের কথায় নিজেরাই ধরা খাবেন। সত্য কখনো ঢেকে রাখা যায় না। মিথ্যা দিয়ে কেউ আমার ক্ষতি করতে পারবে না। সবাই দোয়া করবেন আমার জন্য।’

এনটিভি আয়োজিত সংগীতের বড় রিয়েলিটি শো ‘ক্লোজআপ : তোমাকেই খুঁজছে বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় আসরে চ্যাম্পিয়ন হন মৌসুমী আক্তার সালমা। এরপর সংগীত শিল্পে নিজের পাকাপোক্ত জায়গা করে নেন এই শিল্পী।

২০১১ সালে রাজনীতিবিদ শিবলী সাদিকের সঙ্গে বিয়ে হয় সালমার। ২০১৬ সালের ২০ নভেম্বর বিবাহবিচ্ছেদ হয় তাঁদের। এই সংসারে স্নেহা নামে সালমার ছয় বছরের একটি মেয়ে রয়েছে। সালমার বর্তমান স্বামী সানাউল্লাহ নূর ঢাকা জজকোর্টের আইনজীবী। বর্তমানে তিনি লন্ডনে আছেন, সেখানে বার অ্যাট ল শেষ করে দেশে ফিরবেন শিগগিরই। তখন বিবাহোত্তর অনুষ্ঠান হবে বলে জানান সালমা।