১৫ মিনিটের বন্যায় ২৩ জনের মৃত্যু

প্রবল বৃষ্টিপাতে ইরানে আকস্মিক বন্যায় দক্ষিণ এবং পশ্চিমাঞ্চলে অন্তত ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় দুইশোর বেশি মানুষ।

দেশটির কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থাগুলো হতাহতের এই সংখ্যা জানিয়েছে। সরকারের তরফ থেকে নাগরিকদের যাত্রা বাতিলের পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি আরো বৃষ্টিপাতের সতর্কতা দেয়া হয়েছে।

নতুন বছরের ছুটি চলার মধ্যেই ইরানে প্রবল বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। ছুটি উপলক্ষে অনেকেই বিভিন্ন গন্তব্যে রওনা দিয়েছেন। এর মধ্যে গত সোমবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বার্তায় নাগরিকদের যাত্রা বাতিলের পরামর্শ দেয়া হয়।

আকস্মিক বন্যায় সবচেয়ে দুর্গত এলাকার একটি দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর সিরাজ। সেখানকার এক বাসিন্দা কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরাকে জানিয়েছেন, মাত ১৫ মিনিটের দুই দফার বৃষ্টিপাতে শহরটি বন্যা কবলিত হয়ে পড়ে। মানুষ বাইরে না থাকলে বা বন্যা আসতে দেখে দ্রুত সরে গেলে হতাহতের সংখ্যা কম হতে পারতো বলে জানান তিনি।

দেশটির ১২টি প্রদেশে বুধবার পর্যন্ত জরুরি সতর্কতা জারি করেছে ইরানের আবহাওয়া দফতর। খারাপ আবহাওয়ার কারণে রাজধানী তেহরানের মেহরাবাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যাওয়া ও আসা ফ্লাইটগুলো বাতিল বা বিলম্বিত হচ্ছে। স্থানীয় বার্তা সংস্থা জানিয়েছে কমপক্ষে ২২টি রুট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।